আজ আত্মীয়স্বজনের বাড়িতে যাওয়ার দিন…

কোনো আত্মীয়ের বাড়ি শেষ কবে গিয়েছিলেন? ভাই বা বোনের বাড়ি? চাচা, ফুপু, খালা কিংবা মামাবাড়ি?

অনেকে হয়তো মনেই করতে পারছেন না। হয়তো কবে কোন ছোটবেলায় গিয়েছিলেন; তারপর পেরিয়ে গেছে অনেক বছর। যাঁদের কোলেপিঠে কেটেছে শৈশব, যে মামা-চাচার কাঁধে চড়ে গাঁয়ের মেলায় বেড়াতে যেতেন, যে ভাই-বোনদের সঙ্গে দিনমান খুনসুটি হতো, সবাই যেন কেমন হারিয়ে যেতে থাকল। কত কত দিন কেটে যায়, দেখা হয় না, কথা হয় না। একদিন আচমকা পেছন ফিরে তাকালে কেবল ভেসে ওঠে কতগুলো অস্পষ্ট মুখ, ঝাপসা স্মৃতি।
মহাকালের নিয়মই অবশ্য এমন। শুধুই পেছনে ফেলে যাওয়া। কিন্তু তবু এই তথ্যপ্রযুক্তি, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম, মুঠোফোনে ভিডিও-অডিও যুগের আগে মানুষের ভেতর বোধ হয় এতটা আত্মীয়-বিচ্ছিন্নতা ছিল না। বিভিন্ন আচার-অনুষ্ঠানে, উৎসবে-উপলক্ষে বছরজুড়েই চলত আত্মীয়স্বজনের যাওয়া-আসা। ছিল নাইওর, স্বামী-সন্তান নিয়ে বাবার বাড়ি যাওয়া। গ্রীষ্মের আম-কাঁঠালের ছুটিতে নানা-দাদাবাড়ি যাওয়া, শীতে পিঠাপুলির আয়োজন। জন্ম, মৃত্যু, বিয়ে, ঈদ, পূজা-পার্বণ—আত্মীয়স্বজনের মধ্যে দেখাসাক্ষাতের ক্ষেত্রে উপলক্ষের অভাব ছিল না।

তারপর যেন কী হলো! পৃথিবীজুড়েই মানুষের ভেতর একটা প্রচণ্ড মনোজাগতিক পরিবর্তন ঘটে গেল। আত্মীয়দের সঙ্গে আত্মিক যোগাযোগ কমে গেল। আত্মীয়দের সঙ্গে দেখাসাক্ষাৎ, তাদের বাড়ি আসা-যাওয়া কমে গেল। পাল্লা দিয়ে বেড়ে গেল একটা অদৃশ্য বায়বীয় যোগাযোগ। যেখানে একটা চিঠির জন্য মাসের পর মাস অপেক্ষা করতে হতো, কোনো স্বজনের একটুখানি খোঁজখবর পেতে কেটে যেত বহুদিন, সেখানে সেকেন্ডের পরিমাপে নেমে এল সব। জন্ম-মৃত্যুর খবর, কে কী করছে না করছে—মুহূর্তেই পাওয়া যায় আত্মীয়পরিজনের যাবতীয় সমাচার। এ জন্য অবশ্য তথ্যপ্রযুক্তির কাছে শর্তহীন কৃতজ্ঞতা। এই তুমুল ব্যস্ততার যুগে যেভাবে হোক অন্তত সবাইকে ধরে-বেঁধে রেখেছে।
আজ ১৮ মে, আত্মীয়বাড়ি যান দিবস ( ভিজিট ইওর রিলেটিভ ডে )। হলিডে ক্যালেন্ডারের তথ্যানুযায়ী, ১৯৬০-এর দশকে আমেরিকায় দিনটির চল শুরু হয়। তবে করোনা মহামারির সময় এটি দারুণ জনপ্রিয়তা পায়। এই মহামারিকাল মানুষকে আত্মীয়স্বজনের কাছাকাছি থাকার প্রয়োজনীয়তা চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দেয় যেন।
পারিবারিকভাবে দিনটি পালন করতে পারেন। পরিবারের সবাই মিলে আজ একসঙ্গে কোনো আত্মীয় বাড়ি যান। যাঁরা দূরে থাকেন, তাঁরা ফিরতে পারেন নিজের বাড়িতে। যাঁদের পক্ষে সরাসরি দেখাসাক্ষাৎ নেহাতই সম্ভব নয়, তাঁরা নিদেন মুঠোফোন, খুদে বার্তা বা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে হলেও যোগাযোগ করুন। আত্মীয়স্বজনের যত জনকে সম্ভব ভিডিও কলে যুক্ত করে আড্ডা দিন।

ডেজ অব দ্য ইয়ার অবলম্বনে