বার কাউন্সিল রিটেন প্রস্তুতি-২০২০

মতামত

করোনার বিষাক্ত ছোবলে নাস্তানাবুদ পুরো বিশ্ব।মানবজাতি সহসাই এ ধকল কাটিয়ে উঠবে তারও নেই বৈজ্ঞানিক ব্যাখ্যা।এমন পরিস্থিতিতে সবচে বেশি মানবেতর জীবন যাপন করছেন শিক্ষানবিশ আইনজীবীরা।বার কাউন্সিলের প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের অবস্থাও ভালো নয়।গত ২৮ ফেব্রুয়ারি তাদের MCQ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।অর্ধ লক্ষাধিক ল’ গ্র্যাজুয়েট সে পরীক্ষায় বসলেও কৃতকার্য হয় মাত্র আট হাজার।তারা লিখিত পরীক্ষার জন্য অপেক্ষা করছেন।এরই  মধ্যে অনেকে জানতে চেয়েছেন করোনার মাঝে রিটেন প্রস্তুতির ব্যাপারে।কিন্তু আমি ক্ষুদ্র জ্ঞানের মানুষ। যতটুকু জ্ঞান-বুদ্ধি আছে, সেটার উপর ভিত্তি করে Bar Council Written Preparation-2020 উপস্থাপনের চেষ্টা করছি-

১.প্রস্তুতি নিন পুরোদমে

কথায় আছে- “Well begun is half done”, কিন্তু আপনি ভালো শুরুটা করবেন কিভাবে? আমার মতে,  শুধু প্রশ্ন পড়ার মধ্য দিয়ে শুরু হবে আপনার প্রথম প্রস্তুতি। প্রতিটি প্রশ্ন মনোযোগ সহকারে ভালো করে বুঝে বুঝে পড়তে হবে অন্ততঃ ৩ বার। এভাবে ‘নির্ধারিত সকল প্রশ্ন’ ধারাবাহিকভাবে প্রথম থেকে শেষ পর্যন্ত পড়ে ফেলুন। অতঃপর প্রশ্নগুলোর Proper Answer খুঁজুন এবং তা মার্ক করুন। এতেই আপনার প্রস্তুতি ৫০% কমপ্লিট হয়ে যাবে। এবার মার্ক করা প্রশ্নোত্তরগুলোতে মনোনিবেশ করুন। পড়া ও লেখা চালিয়ে যান সমান তালে। Study & Exercise করতে হবে দৈনিক কমপক্ষে ৪/৫ ঘন্টা। রুটিন মাফিক এগিয়ে গেলে ভালো হয়। তবে কোনক্রমেই ভুলে গেলে চলবে না যে, সবার আগে সুস্থতা। তাই কঠোরভাবে স্বাস্থ্য বিধি মেনে চলুন।

২.শর্ট সাজেশন বর্জন করুন

২১ বছরের প্রশ্ন পর্যালোচনান্তে দেখা যায়, বিগত সালগুলোতে আসা প্রায় সকল প্রশ্নই গতানুগতিক। একই প্রশ্ন ঘুরিয়ে ফিরিয়ে  বার বার এসেছে এমন প্রশ্নও কম নয়। যার কারণে Shortcut পড়েই পাস করা গেছে অনায়েসেই। এখন প্রশ্ন হচ্ছে, একই ধারাবাহিকতা আগামী পরীক্ষায় বজায় থাকছে কিনা? ধারণা করা হয়, Bar Council Written Examination-2020 এর প্রশ্ন আগের ন্যায় নাও হতে পারে। ৯টি প্রশ্ন পড়ে ৭টি প্রশ্ন কমন পাওয়ার যুগ হয়তো শেষ। ঝুঁকি এড়াতে আমরা Bar Council Written Suggestions-2020 হিসেবে শর্ট সাজেশনকে নিরুৎসাহিত করি। বিশ্বাস করি, পারফেক্ট প্রস্ততির বিকল্প নেই। মাফ করবেন, একবার হোঁচট খেলে লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হবে পাক্কা ৩ বছর।

৩.যে সকল বিষয় পড়বেন

সম্পূর্ণ সিলেবাস অনুসরণ করা এবং সিলেবাস অনুযায়ী সবকিছু পুরোপুরি আত্মস্থ করা সকলের পক্ষে সম্ভব বলে মনে করি না। সহজে পাস করার জন্য আপনি জোর দিতে পারেন প্রতিটি সাবজেক্টের বিষয় ভিত্তিক সাজেশন্সের উপর। কোন্ সাবজেক্টে কোন্ বিষয়গুলো ও কোন্ প্রশ্নসমূহ পড়তে হবে তা আগে নির্ধারণ করুন।একাজের সুবিধার্থে আপনি চাইলে গাজীপুর ল’ একাডেমী কর্তৃক প্রকাশিত সাজেশনটি দেখতে পারেন।

৪.ধাপে ধাপে অগ্রসর হন

আগেই বলেছি, প্রতিটি সাবজেক্টের বিষয় ভিত্তিক সাজেশন্সের উপর গুরুত্বারোপ করতে হবে। সংশ্লিষ্ট বিষয়ের সাথে সম্পর্কিত সকল প্রশ্নই পড়তে হবে। যেমন-‘প্লিডিংস’ একটি বিষয়।হিসেব করে এর বেসিক ও গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নগুলো পড়ুন।এভাবে সকল বিষয় পড়তে পড়তে ৭টি সাবজেক্টই শেষ করুন।অন্য কথায় বলা যায়, তিন ধাপে আপনার প্রস্তুতি সম্পন্ন করতে পারেন। প্রথম ধাপে পড়া যেতে পারে ২০১০-২০১৫ সালের সকল প্রশ্ন।২০০৩-২০০৯ সালের প্রশ্নগুলি পড়তে পারেন দ্বিতীয় ধাপে। আর তৃতীয় ধাপে অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্ন।এরই মাঝে ২০১৭ সালের প্রশ্ন পড়া হয়ে যাবে।

৫.নতুন দিনের নতুন প্রশ্ন, প্রস্তুত হোন এখনই   

দিন বদলে যাচ্ছে। পরিবর্তিত সময়ের প্রভাব পড়েছে বার কাউন্সিলের প্রশ্নেও। পাল্টে গেছে প্রশ্নের Pattern, গেল MCQ তার প্রমাণ। আসন্ন লিখিত পরীক্ষার প্রশ্ন বাংলিশ কিংবা ভিন্ন ধাচের হতে পারে এটা বলা বাহুল্য। সে কারণে প্রশ্নের বিষয়বস্তু বুঝতে হবে নানা আঙ্গিকে। প্রতিটি প্রশ্নের এবং সংশ্লিষ্ট বিষয়ের Key Word কোর্টের পরিভাষায় বাংলা ও ইংলিশে জেনে রাখা খুবই জরুরী। একই সঙ্গে সংজ্ঞা, টিকা বা ব্যাখ্যামূলক প্রশ্নে বিশেষ নজর দিতে হবে। যে কোন সংজ্ঞা বা ব্যাখ্যা আকারে গতানুগতিক বা সৃজনশীল প্রশ্নের সাথে জড়িয়ে দিতে পারে। আপনাকে এমনভাবে প্রস্তুত হতে হবে যেন You are fit to proper answer accordance with any question.

৬.বাস্তব জ্ঞান দিয়ে সুরাহা করুন সৃজনশীল প্রশ্ন

আসন্ন লিখিত পরীক্ষায় সৃজনশীল প্রশ্ন বেশি আসতে পারে। যে কোন উদাহরণ তুলে দিয়ে সমাধান করতে বলতে পারে। এজন্য বিগত সালের সৃজনশীল প্রশ্নের পাশাপাশি মেইন বইতে বর্ণিত গুরুত্বপূর্ণ উদাহরণগুলো ভালো করে পড়তে হবে। একই সঙ্গে বিভিন্ন আরজি, দরখাস্ত ইত্যাদি মুসাবিদা করার কৌশল আয়ত্তে আনতে হবে। মক্কেলকে আইনী পরামর্শ দেয়ার Legal Process গুলো শিখতে হবে। সর্বোপরি রিলেটেড মামলা-মোকদ্দমার নথিপত্রের সঙ্গে লেগে থাকুন। দেখবেন সৃজনশীল প্রশ্ন কোন ব্যাপারই না।

৭.আগের পড়া ঝালাই করুন

প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার জন্য যেসব পড়েছেন ও জানেন, সেটাই আরেকটু বেশি করে ঝালাই করেন। গুরুত্বপূর্ণ টপিকগুলোর ব্যাখ্যা-বিশ্লেষণ দখলে রাখেন।তবে MCQগুলো পড়বেন না। বেসিক ও গুরুত্বপূর্ণ দেখে পড়বেন। সবকিছু পড়তে গিয়ে জগাখিচুড়ি করে ফেলবেন না। নিজের আত্মবিশ্বাসটাকে সর্বোচ্চ করুন ও কাজে লাগান।আগের পড়া রিভিশনের মধ্যে কমপক্ষে দুটো বরকত আছে- প্রথমতঃ লিখিত পরীক্ষায় ‘অনাকাঙ্ক্ষিত অবস্থা’ হাজির হলে আপনার রিজার্ভ ভান্ডার পরিস্থিতি অনেকটা সামলিয়ে নিতে পারবে-আপনার এই খাটুনি সার্থক হবে; দ্বিতীয়তঃ আপনার Viva Preparationটাও অটো আপডেট হয়ে থাকবে।

৮.উত্তর কত শব্দবিশিষ্ট হবে

সর্বোচ্চ ৩৫ মিনিটে প্রতি ১৫ নম্বরের প্রশ্নের উত্তর হবে কমপক্ষে ৬৫০ শব্দবিশিষ্ট আর সর্বোচ্চ ২৪ মিনিটে বার কাউন্সিল  সংক্রান্ত ১০ নম্বরের প্রশ্নের উত্তর হতে হবে ন্যূনতম ৫৫০ শব্দের। কিন্তু উত্তর বড় করার জন্য অপ্রাসঙ্গিক ও অহেতুবাদ বিষয়াদি টানা যাবে না। বিভিন্ন টেকনিক রপ্ত করবেন যাতে নির্ধারিত সময়ে প্রাসঙ্গিক, গঠনমূলক ও প্রশ্ন কেন্দ্রিক আপনার উত্তরই Proper Answer হিসাবে বিজ্ঞ পরীক্ষকের নিকট গৃহীত হয়।

পরিশেষে বলবো, স্বাস্থ্যের ব্যাপারে সচেতন থাকুন, আল্লাহর উপর ভরসা রাখুন। যেভাবেই প্রশ্ন আসুক, Appropriate Answer করতে পারবেন এবং সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে সফল হবেন, ইনশাল্লাহ। সকলের জন্য নিরন্তর শুভ কামনা ও প্রার্থনা।

মোঃ সাইফুল ইসলাম মোল্লা

অধ্যক্ষ/পরিচালক

গাজীপুর ল’ একাডেমী

মোবাইলঃ ০১৭১৮১৫৪৫৭১

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *